অনলাইন ইনকামইন্টারনেট টিপসকম্পিউটার ও ল্যাপটপগ্রাফিক্স ডিজাইনটুলস রিভিউসাধারণ জ্ঞানস্কিল ডেভেলপমেন্ট

অ্যাডোবি ফটোশপ কি? ফটোশপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায়?

ইন্টারনেটে বিভিন্ন ধরণের কৃত্রিম ছবি বা ইমেজ দেখতে পাওয়া যায়। যেই ইমেজ বা ছবি গুলোকে আমরা সাধারণত ফটোশপ করা ছবি হিসেবে চিনি। এই ধরণের ছবিতে মনের ভাষাকে বিভিন্নভাবে দৃষ্টিনান্দন করে উপস্থাপন করা হয়। আর এই সবই মূলত ফটোশপ এর যাদু। কিন্তু ফটোশপ কি এবং ফটোশপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায় তা জানার কৌতুহল প্রায় সকলেরই রয়েছে।

ফটোশপ মূলত একটি ফটো এডিটিং সফটওয়্যার। যা গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার হিসেবেও ব্যাপক পরিচিত। ফটোশপের কাজ গুলো এতটাই নিখুঁত হয় যে, যা মানুষের দৃষ্টিকে গভীরভাবে আকর্ষণ করতে পারে।

আপনি হয়তো ফটোশপ সফটওয়্যারের নাম ইতিমধ্যেই বিভিন্ন পাঠ্যপুস্তক বা বন্ধু-বান্ধবদের থেকে শুনেছেন। ফটোশপের নাম শুনেন আর নাই শুনেন, কিন্তু এই সফটওয়্যার দিয়ে তৈরি বিভিন্ন প্রোডাক্ট, আসবাবপত্র আমার -আপনার দৈনন্দিন জীবনে ওতপ্রোত ভাবে মিশে আছে।

আপনি যদি কম্পিউটার ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তবে আপনাকে কম্পিউটার শেখার ক্ষেত্রে ফটোশপের কাজ শেখা অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ফটোশপ বাংলা টিউটোরিয়ালের এই পর্বে আজ আমরা জানবো, Photoshop কি, ফটোশপ তৈরি করে কোন কোম্পানি, ফটোশপে কত প্রকার টুল রয়েছে এবং ফটোশপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায় ইত্যাদি।

ফটোশপ কি?

ফটোশপ (Photoshop) একটি গ্রাফিক্স সম্পাদনাকারী সফটওয়্যার। এই সফটওয়্যারের সাহায্যে প্রায় সব ধরণের স্টিল ইমেজ গ্রাফিক্স এর কাজ করা যায়।

সফটওয়্যারটি প্রাথমিক ভাবে শুধুমাত্র ছবির কাজের জন্য তৈরি করা হয়েছিল। তবে সময়ের সাথে সাথে গ্রাফিক্সের কাজের জন্য সফটওয়্যারটি বিশ্ব বিখ্যাত হয়ে উঠে।

Photoshop বর্তমানে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম এবং ম্যাক ওএস অপারেটিং সিস্টেম এর পাশাপাশি মোবাইলের এন্ড্রোয়েড অপারেটিং সিস্টেম এর জন্যও এভেইলএবল।

ফটোশপ তৈরি করে কোন কোম্পানি?

ফটোশপ সফটওয়্যারটি তৈরি করেছে অ্যাডোবি সিস্টেমস। তাই এই সফটওয়্যারকে অ্যাডোবি ফটোশপ বলেই ডাকা হয়।

অ্যাডোবি কোম্পানির তৈরি বিভিন্ন ধরণের সফটওয়্যার রয়েছে। তবে তাদের সবথেকে জনপ্রিয় সফটওয়্যার হলো Photoshop.

ফটোশপ কিভাবে তৈরি হয়েছে, চলুন তার ইতিহাস জেনে নিই।

Photoshop এর ইতিহাস

৯৮৭ সালে থমাস নল (Thomas Knoll) একজন পিএইচডি এর ছাত্র ছিলেন। তখন তিনি ম্যাকিন্টোস প্লাস (Macintosh Plus) এর জন্য একটি অতি সাধারণ অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপ করেন।

যেই অ্যাপ্লিকেশনটিতে শুধুমাত্র এক কালারের স্ক্রিনে সাদা-কালো ছবি নিয়ে কাজ করা যেতো।

থমাস নল এই অ্যাপ্লিকেশনটির নাম ডিসপ্লে (Display) রেখেছিলেন। ফটোশপের ইতিহাস এখান থেকেই শুরু হয়।

এ কারণেই থমাস নলের তৈরি Display অ্যাপ্লিকেশনটিকে ফটোশপের জনক (Father of Photoshop) বলে আখ্যা দেওয়া হয়।

থমাস নল এর আরেক ভাইয়ের নাম ছিল ‘জন নল’ (John Knoll)।

জন নল ফটোর প্রতি অতিমাত্রায় আগ্রহী ছিলেন।

ফটোর কাজের জন্য থমাস নলকে একটি ফটো এডিটিং প্রোগাম বানানোর জন্য জন নল বিশেষ ভাবে আহবান করে।

থমাস প্রথমে রাজি হয়নি। কারণ, তখনও তিনি পিএইচডি শেষ করেননি।

তবে এক পর্যায়ে ভাইয়ের আহবানে থমাস নল রাজি হোন এবং তার শিক্ষা জীবন থেকে ৬ মাসের বিরতি নিয়ে Image pro নামের একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেন।

কিন্তু Image pro নামটি নিয়ে কপিরাইট ইস্যু তৈরি হয়। যে কারণে নাম পরিবর্তন করে Photoshop রাখা হয়।

ফটোশপের প্রথম ভার্সনটি ছিল Photoshop 0.7, যা ৯৮৮ সালে Adobe কোম্পানির কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়।

এরপর থেকেই অ্যাডোবি ফটোশপ নামে অ্যাপ্লিকেশনটি বাজারজাত করা হয় এবং এই নামেই পরিচিতি পায়।

Photoshop এর সংস্করন সমূহ

এডোবি ফটোশপের বিভিন্ন সংস্করণ ইতিমধ্যেই প্রকাশ পেয়েছে। ফটোশপ কি কি ভার্সনে বাজারে এসেছে তা নিম্নরূপ –

ফটোশপ এর CS সিরিজঃ

  • Photoshop CS (ভার্সন ৮)
  • Photoshop CS2 (ভার্সন ৯)
  • Photoshop CS3 (ভার্সন০)
  • Photoshop CS4 (ভার্সন ১১)
  • Photoshop CS5 (ভার্সন ২)
  • Photoshop CS5 Extended
  • Photoshop CS6 (ভার্সন ৩)

ফটোশপ এর Elements সিরিজঃ

  • Photoshop Elements 6.0 for Macintosh
  • Photoshop Elements 6.0 for Windows
  • Photoshop Elements 6.0
  • Adobe Premiere Elements 4.0

ফটোশপ এর Beta সিরিজঃ

  • Photoshop Express Beta

ফটোশপ এর Beta সিরিজঃ

  • Photoshop Lightroom 2

ফটোশপ এর CC সিরিজঃ

  • Photoshop CC (ভার্সন ৪)
  • Photoshop CC 2014 (ভার্সন ৫)
  • Photoshop CC 2015 (ভার্সন ৬ ও৭)
  • Photoshop CC 2017 (ভার্সন ৮)
  • Photoshop CC 2018 (ভার্সন ৯)
  • Photoshop CC 2019 (ভার্সন ২০)
  • Photoshop CC 2020 (ভার্সন ২)
  • Photoshop CC 2021 (ভার্সন ২২)
  • Photoshop CC 2022 (ভার্সন ২৩)

ফটোশপের যতগুলো সিরিজ প্রকাশ হয়েছে, তারমধ্যে এখন পর্যন্ত CC সিরিজ সবচেয়ে আপডেট ও শক্তিশালী।

CC সিরিজ এর অপর নাম ক্রিয়েটিভ ক্লাউড (Creative Cloud)।

ফটোশপের ক্রিয়েটিভ ক্লাউড বা সিসি সিরিজে বিভিন্ন ধরণের অবিশ্বাস্য কিছু ফিচার যোগ করা হয়েছে।

ফটোশপে কত প্রকার টুল রয়েছে?

ফটো এডিটিং বা গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজের জন্য ফটোশপের বিভিন্ন ভার্সন ব্যবহার করা হয়।

প্রত্যেকটা ভার্সনেই নতুন নতুন কিছু ফিচার ও টুলস সংযুক্ত করা হয়েছে।

এজন্য ফটোশপের ভার্সন অনুযায়ী টুলসের সংখ্যাতেরও ডিফরেন্ট লক্ষ্য করা যায়।

যেমন, Adobe Photoshop CS6 এর টুলস প্যানেলে প্রায় ৭০ টি টুলস রয়েছে।

অন্যদিকে Adobe Photoshop CC এর টুলসের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ।

তবে ফটোর কাজ করার জন্যে অতি গুরুত্বপূর্ণ যেই টুলস গুলো রয়েছে তা প্রায় সকল ফটোশপের ভার্সনেই বিদ্যমান।

অধিক ব্যবহৃত ফটোশপের টুলস সমূহ

  • Move Tool ও
  • Artboard Tool
  • Rectangular Marquee Tool,
  • Elliptical Marquee Tool এবং
  • Lasso Tool.
  • Polygonal Lasso Tool এবং
  • Magnetic Lasso Tool
  • Object Selection Tool,
  • Quick Selection Tool এবং
  • Magic Wand Tool.
  • Crop Tool,
  • Perspective Crop,
  • Tool Slice Tool এবং
  • Slice Select Tool.
  • Frame Tool ও
  • Spot Healing Brush Tool.
  • Brush Tool,
  • Pencil Tool,
  • Color Replacement Tool ও
  • Mixer Brush Tool.
  • Eyedropper Tool,
  • Clone Stamp Tool এবং
  • History Brush Tool.
  • Eraser Tool,
  • Background Eraser Tool এবং
  • Magic Eraser Tool.
  • Gradient Tool ও
  • Paint Bucket Tool.
  • Blur Tool,
  • Dodge Tool ও
  • Pen Tool.
  • Rectangle Tool,
  • Rounded Rectangle Tool,
  • Ellipse Tool,
  • Polygon Tool,
  • Line Tool এবং
  • Custom Shape Tool
  • Hand Tool ও
  • Zoom Tool ইত্যাদি।

ফটোশপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায়?

ফটোশপ যদিও ফটো এডিটিং সফটওয়্যার হিসেবেই পরিচিতি পেয়েছে, তবে বর্তমানে এটি শুধু ফটোর কাজেই সীমাবদ্ধ নেই।

গ্রাফিক্স ডিজাইন এর প্রায় সকল কাজেই ফটোশপের ব্যবহার হয়।

বর্তমান সময়ে আমরা ইন্টারনেটে বা সোশ্যাল মিডিয়ায় যেই সমস্ত দৃষ্টিনান্দন কৃত্রিম -অকৃত্রিম ছবি গুলো দেখতে পাই, তার বেশীরভাগই ফটোশপ দিয়ে করা।

ফটোশপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায় তা কোনো ভাবেই সীমাবদ্ধ করা যাবে না। ফটোশপের কাজ গুলো মধ্যে রয়েছে-

  • ফটো এডিটিং
  • ব্যানার ডিজাইন
  • টি শার্ট ডিজাইন
  • কভার প্রচ্ছদ ডিজাইন
  • পোস্টার ডিজাইন
  • লোগো ডিজাইন
  • আইকন ডিজাইন
  • ফেস্টুন ডিজাইন
  • মগ ডিজাইন
  • প্যাকেট ডিজাইন
  • আইডি কার্ড ডিজাইন ইত্যাদি।

উপরোল্লিখিত কাজ গুলো ছাড়াও ফটোশপের মাধ্যমে গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রায় সকল কাজই কম-বেশী করা যায়।

তাই এটিকে ফটোশপ এর যাদু বলা যায়।

শেষ কথাঃ

প্রিয় পাঠক, ফটোশপ এর কাজ শেখার জন্য প্রায় অনেকেই আগ্রহী হয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে অ্যাডোবি ফটোশপ কি তা জেনে নেওয়ার অনেক প্রয়োজন ছিল। আশাকরি এই আর্টিকেলটি পড়ে ইতিমধ্যেই তা জেনে নিয়েছেন।

ফটোশপ সফটওয়্যারের ভার্সন সমূহ, ফটোশপে অধিক ব্যবহৃত টুলস সমূহ এবং ফটোশপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায় তাও আপনাদের বলেছি।

আপনি যদি ফটোশপের কাজ শিখে নিজের স্কিল ডেভেলপ করতে চান, তবে এখন থেকেই কাজ শেখা শুরু করে দিন। অনলাইন ও অফলাইন উভয় জায়গায় ফটোশপ স্কিলের অনেক ডিমান্ড রয়েছে।

যাইহোক, আশাকরি আর্টিকেলটি আপনার কাছে ভালো লেগেছে। ফটোশপ বিষয়ে আপনার যদি আরও কোনো প্রশ্ন থাকে তবে অবশ্যই কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ

IT Nirman

যত জ্ঞান-ধন করেছি অর্জন জীবনের প্রয়োজনে, তার সবটুকুই বিলাতে চাই সৃষ্টির কল্যাণে।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
× How can I help you?

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker!