ভয়েস রেকর্ডে মাইক্রোফোনের সাউন্ড বুস্ট করুন Windows 11

ভয়েস রেকর্ডে মাইক্রোফোনের সাউন্ড বুস্ট করুন Windows 11

আজকাল কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ দিয়ে প্রায় অনেকেই ভয়েস রেকর্ড করে। তাদের মাঝে বেশির ভাগই বিভিন্ন ক্যাটাগরির কন্টেন্ট ক্রিয়েটর। আর একথা সকলেই জানি, যে কোনো ক্যাটাগরির কন্টেন্টের জন্য সুস্পষ্ট উচ্চমানের সাউন্ড কতবেশি গুরুত্বপূর্ণ।

সাউন্ড রেকর্ড করতে গিয়ে প্রয়োজন অনুসারে আমরা বিভিন্ন বাজেটে কোয়ালিটির মাইক্রোফোন ব্যবহার করে থাকি। তবুও অনেক সময় দেখা যায় যে, ভালো মাইক্রোফোন ব্যবহার করেও আশানুরূপ সাউন্ড পাওয়া যায় না।

উচ্চমানের ভয়েস ওভারের জন্য কোয়ালিটি মাইক্রোফোনের প্রয়োজন আছে, তবে শুধুমাত্র একটি মাইক্রোফোনই উচ্চমানের সাউন্ডের জন্য এনাফ নয়। আরও কিছু বিষয় আছে, যা প্রয়োগের মাধ্যমে একটি লো বাজেটের মাইক্রোফোনের সাউন্ডকেও উচ্চমানের সাউন্ডে পরিণত করা যায়।

বিশেষ করে যারা কম্পিউটারে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করেন, তাদের ক্ষেত্রে মাইক্রোফোনের সাউন্ড বুস্ট করার অসাধারণ একটি সুযোগ রয়েছে। উইন্ডোজ ১০ এবং উইন্ডোজ ১১ এর ব্যবহারকারীরা এই সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেন।

আজ আমি আপনাদের বলব, কিভাবে আপনার মাইক্রোফোনের ইনপুর্ট সাউন্ডকে কয়েকগুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি করবেন। যারা ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করেন তাদের জন্য এই আর্টিকেলটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলছে।

ভয়েস রেকর্ডে মাইক্রোফোনের সাউন্ড বুস্ট প্রক্রিয়া

আপনি উইন্ডোজ ১০ অথবা উইন্ডোজ ১১ যেটাই ব্যবহার করেন না কেন, এই দুটো অপারেটিং সিস্টেমে microphone sound booster প্রক্রিয়াটি প্রায় একই। আপনাদের সবিধার্থে আমি ভিডিওতে পুরো প্রসেসটি দেখিয়েছি।

ভিডিওটি অনুসরণ করে আপনি আপনার মাইক্রোফোনের সাউন্ড বুস্ট করে নিতে পারবেন, যা আপনার ভয়েস রেকর্ডিংকে অনেক উচ্চ মাত্রায় নিয়ে যাবে। আমিও মূলত এভাবেই আমার মাইক্রোফোনের সাউন্ড বাড়িয়ে থাকি।

ইউটিউবে আমি ভিডিও কন্টেন্ট ক্রিয়েট করি তা অনেকেই জানেন। আমার কন্টেন্টের ভয়েস ওভার মূলত দুই ধরণের মাইক্রোফোন ব্যবহার করে দিয়ে থাকি। তারমধ্যে একটি নরমাল মাইক্রোফোন BOYA BY-M1 এবং আরেকটি হলো condenser microphone, যার মডেল BM-800.

আমার বেশিরভাগ ভিডিওতেই সাউন্ড রেকর্ড করেছি BM-800 দিয়ে। উইন্ডোজ এর ডিফল্ড সেটিংয়ে রেকর্ড করলে খুব ভালো সাউন্ড কোয়ালিটি পাওয়া যেত না। তবে উইন্ডোজ থেকে মাইক্রোফোনের সাউন্ড বুস্ট করে নিলে সাউন্ড কোয়ালিটি অনেকটা বেড়ে যায়। যা আপনার ভিডিওর সাউন্ড শুনেই হয়ত বুঝতে পেরেছেন।

শেষ কথাঃ

কন্টেন্ট ক্রিয়েটে ভয়েস ওভারের জন্য খুব ভালো মাইক্রোফোনের প্রয়োজন হয় না। আপনারা দেখে থাকবেন প্রায় বেশির ভাগ কন্টেন্ট ত্রিয়েটরগণ BOYA BY-M1 এবং BM-800 ব্যবহার করে। এগুলো অনেকবেশি বাজেট ফ্রেন্ডলি।

কন্টেন্ট ক্রিয়েটের কাজে মিড বাজেটের মধ্যে এই ধরণের মাইক্রোফোন গুলোই যথেষ্ট। উইন্ডোজ সেটিং থেকে মাইক্রোফোনের ইনপুর্ট সাউন্ড ভলিয়ম বাড়িয়ে নিলে আরও ভালো সাউন্ড কোয়ালিটি পাওয়া যাবে।

আবার ভয়েস রেকর্ড গুলো প্রোপারলি এডিট করতে পারলে খুব ভালো মানের সাউন্ড পাওয়া সম্ভব। তাই গুরুত্বের সাথেই উইন্ডোজ সেটিং থেকে মাইক্রোফোনের ইনপুর্ট সাউন্ড ভলিয়ম বাড়িয়ে নেওয়া জরুরি।

Add comment

Posts

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.