ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা ও সম্ভাবনা

ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা ও সম্ভাবনা

ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইন এর চাহিদা ও সম্ভাবনা কেমন এই বিষয়ে নতুনদের অনেকেই জানতে চায়। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া ও ফোরাম ওয়েবসাইটে এ-নিয়ে প্রশ্নের অভাব নেই। আমাদের ফেসবুক গ্রুপেও এই ধরণের প্রশ্ন আসে। এজন্যই মূলত এই আর্টিকেলেটি তৈরি করা হয়েছে।

আপনি যদি Graphics design এর উপর অনলাইনে career গড়তে চান তবে আপনাকে জানতে হবে গ্রাফিক্স ডিজাইন ফ্রিল্যান্সিংয়ে কেমন সমৃদ্ধ, অনলাইনে গ্রাফিক্স ডিজাইন করে কত টাকা আয় করা যায়, গ্রাফিক্স ডিজাইনারের বেতন কত ইত্যাদি।

গ্রাফিক্স রিলেটেড এই ধরণের আরো বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর নতুন হিসেবে আপনাকে জানতে হবে। তাহলে আপনি খুব সহজেই অল্প সময়ে Graphics design এর উপর ফ্রিল্যান্সিং করে সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

শুধুমাত্র গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার এর কাজ জানলেই ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফল হওয়া যায় না। সফল হতে হলে কিছু টেকনিক এবং সমসাময়িক জ্ঞানে নিজেকে আপডেট রাখা খুবই জরুরি। আমার অনলাইন অভিজ্ঞতা থেকে কিছু ধরণা দিতে চেষ্টা করেছি, যা আপনি গাইড হিসেবে নিতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইন

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইনকে খুবই চমৎকার একটি স্কিল বলা যায়। ইন্টারন্যাশানাল বড় বড় মার্কেটপ্লেস গুলোর জনপ্রিয় ক্যাটাগরিতে Graphics design প্রথম সারির একটি কাজ। তাই এর চাহিদা ও জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী বলাই যায়।

গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর প্রতিদিন ইন্টারনেটে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলারের কাজ হয়। আর এই কাজ গুলো আমার-আপনার মতই মানুষেরা সম্পাদন করে।

বাংলাদেশে এমন লক্ষ লক্ষ তরুণ-তরুণী আছে যারা গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর অনলাইন এবং অফলাইনে কাজ করছে। বিশেষ করে যারা অনলাইনে এক বছরের বেশী সময় ধরে কাজ করছে তাদের প্রায় প্রত্যেকই ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার ডেভেলপ করতে সক্ষম হয়েছে।

ফ্রিল্যান্সিং বলতে আমরা বেশীরভাগ মানুষ মনে করি যে, কোনো মার্কেটপ্লেসে কাজ করে আয় করাকেই ফ্রিল্যান্সিং বলে। অথচ, ফ্রিল্যান্সিং এর মানে হলো মুক্ত পেশা। অর্থাৎ, আপনি ইন্টারনেটের সাহায্যে যেভাবেই কাজ করে আয় করেন না কেন, তা ফ্রিল্যান্সিং এর মধ্যেই গণ্য হবে।

আমি নিজেও একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার। একসময় বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে সেলার হিসেবে কাজ করতাম। এখনও কাজ করি। তবে এখন আর কোন মার্কেটপ্লেসে না।

লোকাল মার্কেট টার্গেট করে প্রায় ৬ বছর ধরে কাজ করছি। এরই মধ্যে দেশী -বিদেশী ক্লাইন্টদের সাথে কাজ করার সুযোগ অর্জন করতে পেরেছি।

আমার পরিচিত অনেক গ্রাফিক্স ডিজাইনার আছে যারা বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কাজ করছে। আবার অনেকেই অফলাইনেও কাজ করে।

যাইহোক, আমি আমার বাস্তব অভিজ্ঞতায় দেখেছি যে ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইন খুবই উচ্চ চাহিদা সম্পূর্ণ একটি কাজ এবং এর দারুণ ক্যারিয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।

মার্কেটপ্লেস নাকি লোকাল মার্কেট?

আমরা ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য যে কোনো স্কিল ডেভেলপ করিনা কেন, আমাদের প্রায় সকলেরই প্রথম টার্গেট থাকে কোনো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করব। গ্রাফিক্স ডিজাইন এর ক্ষেত্রেও তাই।

কিন্তু আমাদের অনেকেই জানিনা যে, ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য শুধুমাত্র মার্কেটপ্লেসই সীমাবদ্ধ না। বাহিরেও এর উপর অনেক কাজ রয়েছে।

পৃথিবীর সকল মার্কেটপ্লেস গুলো একত্রে মাত্র ২০% থেকে ৩০% ক্লাইন্ট ধরে রেখেছে। আর ৭০-৮০% ক্লাইন্ট মার্কেটপ্লেসের বাহিরে কাজ করতে পছন্দ করে। বাস্তবেও তাই ঘটছে।

এর কারণ হলো, প্রত্যেকটি মাকের্টপ্লেসে সেলার এবং বায়ারের মধ্যে যোগাযোগ ও কথোপকোথনের সীমাবদ্ধতা রয়েছে। এটি মার্কেটপ্লেস ব্যবহারের চূড়ান্ত পদ্ধতি।

এই বিষয়টি সেলার এবং ক্লাইন্ট কেহই পছন্দ করে না। কারণ, খোলামেলা ভাবে ক্লাইন্ট ও সেলারের মধ্যকার বেশীরভাগ চুক্তি অস্পষ্ট থেকে যায়। আবার সেলার চাইলেও তার নিজস্ব ক্রিয়েটিভিটি খুব ভালো করে দেখাতে পারে না।

এজন্য বড় বড় ফ্রিল্যান্সারদের বেশীর ভাগই নিজস্ব এজেন্সির মাধ্যমে অথবা লোকাল মার্কেটে কাজ করে। ফ্রিল্যান্সিং এর বেশীর ভাগ আয় লোকাল মার্কেট থেকেই আসে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন এর গুরুত্ব ও সম্ভাবনা

ইন্টারনেটে যত ধরণের কাজ আছে তার বেশীর ভাগই গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর। বাস্তবিকভাবে আমরা যদি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের দিকে তাকাই তবে দেখবো যে, আমাদের চারপাশে ওতপ্রোতভাবে Graphics design জরিয়ে আছে।

তাছাড়া, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির এই যুগে গ্রাফিক্স ডিজাইনের ব্যবহার এতবেশী বেড়েছে যে, মানুষের শিক্ষা থেকে শুরু করে সরকারি-বেসরকারি চাকরি এবং ক্যারিয়ার লাইফের প্রায় প্রতিটি কাজেই গ্রাফিক্স এর ব্যবহার করতেই হয়।

গুরুত্বপূর্ণ ইনফরমেশন হলো ডিজাইন রিলেডেট যত কাজ আছে তার সবই Graphics design এর অন্তর্ভূক্ত।

এজন্য ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইন খুবই সম্ভবনার এটা বলার অপেক্ষা রাখে না।

কিন্তু আপনি যখন গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর ফ্রিল্যান্সিং করতে যাবেন তখন আপনাকে সৃজনশীলতা দেখিয়ে প্রতিযোগীতা মূলত কন্টেস্টে আজীবন লড়ে যেতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং এ অলটাইম প্রতিযোগীতা

আমরা যারা মনে করি মার্কেটপ্লেসেই শুধু গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করতে হবে। তারা নিঃসন্দেহে ভুলের মধ্যে রয়েছে।

মার্কেটপ্লেসে Graphics design এর কাজ আপনি যেমন পাবেন তার চেয়ে বেশী পাবেন লোকাল মার্কেটে। আবার মার্কেটপ্লেসে যে পরিমাণ কম্পিটিশন তা এড়িয়ে গিয়ে সফল হওয়ার কোন সুযোগ নেই।

আপনি যদি লোকাল ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে লক্ষ্য করেন তখন দেখবেন যে, ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে ডিজাইনারদের অভাব নেই। তবে মজার বিষয় হলো, এত এত ডিজাইনার থাকা সত্বেও হাজার হাজার ক্লাইন্ট ডিজাইনারের অভাবে বসে থাকে!

কারণ, সকলেই চায় তার কাজটা দক্ষ কোন ডিজাইনের মাধ্যমে করিয়ে নিতে। কিন্তু লোকাল মার্কেটপ্লেসে যারা কাজ করে সবাই তো শতভাগ দক্ষ না।

এজন্য আপনি যখন ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইনকে টার্গেট করবেন তখন আপনাকে দক্ষতার পরিচয় দিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। এটা এজন্য যে, আমার-আপনার মতো হাজার হাজার ডিজাইনার মার্কেটপ্লেসে বায়ারদের কাজ করার অপেক্ষায় বসে থাকে।

এক্সাম্পলঃ

ফ্রিল্যান্সার মার্কেটপ্লেসে কন্টেস্ট (Contest) নামের একটি ফিচার আছে। এখানে ডিজাইনারদের মধ্যে প্রতিনিয়তই প্রতিযোগীতা চলে। বায়ারেরা বিভিন্ন কাজ freelancer.com -এ Contest এর আওতায় অফার করে, তারপর একটি কাজের কন্টেস্টে ০০ – ,০০০ জন ডিজাইনার অংশগ্রহণ করে।

বায়ার তার বাজেট, কাজের চাহিদা এবং প্রয়োজনীয় ইনফরমেশন পূর্ব থেকেই বলে দেয়। ডিজাইনাররা বায়ারের চাহিদা অনুযায়ী তার নিজস্ব ডিজাইন শোআপ করে। তারপর বায়ার সবার ডিজাইন দেখে, যার ডিজাইনটা ভায়ারের কাছে ভালো লাগে তাকে সেই কন্টেস্টে বিজয়ী বলে ঘোষণা দেয় এবং ডিজাইনের বাজেট সেই বিজয়ীকে দিয়ে দেয়।

কন্টেস্টে তিনিই বিজয়ী হন যার ডিজাইন ইউনিক এবং মানসম্পন্ন হয়। এই ধরণের কন্টেস্টে বায়ারের বাজেট $10 – $10,000 পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে সাধারণত $100 – $1,000 এর কাজ বেশী পাওয়া যায়।

গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর কাজ করার জন্য Upwork, 99Design, Freelancer, fiverr ইত্যাদি মার্কেটপ্লেস গুলো সিমিলার। নতুন ডিজাইনারদের দক্ষতা বাড়ানোর খুবই চমৎকার একটি ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস হলো freelancer.com.

 গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথাঃ

ফ্রিল্যান্সিং যাত্রার শুরুটা প্রায় সকলেরই মার্কেটপ্লেস দিয়ে হয়। তবে বেশীরভাগ মানুষ কম্পিটিশনের কারণে মার্কেটপ্লেসে টিকে থাকতে কষ্ট হয়। কিন্তু আপনি যদি ৩-৬ মাস গুরুত্বের সাথে সাধনা করতে পারেন, তবে গ্রাফিক্স ডিজাইনেই আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার গড়ার একটি সম্ভাবনা দেখতে পারবেন।

আবার শুরুটাই যদি মার্কেটপ্লেসের বাহিরে থেকে করতে চান, অর্থাৎ লোকাল ক্লাইন্ট টার্গেট করে কাজ করতে চান তবে এটাও আপনার জন্য বিভিন্ন অপর্চুনিটি দেবে।

মোটকথা হলো ফ্রিল্যান্সিং এ গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা ও সম্ভাবনা খুবই ভালো। প্রত্নপ্রস্তর যুগ থেকে চলতে থাকা গ্রাফিক্স ডিজাইনের ভবিষ্যৎও অনেক চাহিদা সম্পন্ন হবে এটা ধারণা করাই যায়।

তাই আপনি যদি Graphics design এর উপর ফ্রিল্যান্সিং করতেই চান তবে নিঃসন্দেহে কাজ শুরু করতে পারেন। তবে পরামর্শ হলো নিজেকে ভালোকরে দক্ষ করে তুলুন, তারপর অনলাইন ইনকামের কথা ভাবুন।

এটা এজন্য যে, অনেকেই খুব ভালো না জেনেই ফ্রিল্যান্সিং শুরু করে দিতে চায়। তারপর ইন্টারনেটে কিছু করতে না পেরে ঝরে যায়। তাই আপনারা গ্রাফিক্স বা অন্য যে কোন স্কিল ডেভেলপ করেন না কেন, নিজেকে সৃজনশীলতার সাথে গড়ে তুলুন।

আপনার নতুন কোন প্রশ্ন, পরামর্শ এবং মতামত কমেন্টবক্সে লিখে ফেলুন। আমরা যথাসাধ্য আপনাকে সহযোগিতা করার প্রতিশ্রুতি দিই। সবাইকে ধন্যবাদ

Add comment

Posts

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.