মোবাইল ইন্টারনেট

মোবাইল ইন্টারনেট স্লো? দুইগুণ ফাস্ট করুন

প্রিয় পাঠক! আশা করি স্রষ্টার অশেষ কৃপায় আপনি ভালোই আছেন। অনেকেই হয়ত এন্ড্রয়েড ফোনের স্লো ইন্টারনেট নিয়ে একটু কষ্টে বা উদাসীনতায় ভূগছেন। এটা ব্যপার না। আপনাদের জন্যই আজকে নিয়ে এসেছি মোবাইল ইন্টারনেট ফাস্ট করার দারুণ একটা টিপস! যা ব্যবহার করার পর আপনি মোবাইল স্লো ইন্টারনেট সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। মনে রাখবেন যেখানে ভুল আছে সেখানে সমাধানও আছে।

আমাদের মাঝে প্রায় ৮০-৯০% মানুষই এন্ড্রোয়েড মোবাইল ব্যবহার করি। এরমাঝে প্রায় সকলেই ইন্টারনেটের সম্পৃক্ত। ইন্টারনেট ব্যবহার করার জন্য বেশির ভাগ মানুষই সিম দিয়ে এমবি ক্রয় করি। বাংলাদেশে প্রতি জিবি (০২৪ এমবি) গড়ে ৩০/৪০ টাকা দিয়ে ক্রয় করতে হয়। তবে দুখের বিষয় হলো, আশানুরূপ ইন্টারনেট গতি এবং মেয়াদ পাওয়া যায় না।

বাংলাদেশের শহর এলাকায় প্রায় মানুষই ব্রডব্রেন্ড বা ওয়াইফাই ( Wi-Fi) ব্যবহার করে। কিন্তু গ্রাম এলাকায় এই পরিসেবাটি নেই। সিম দিয়ে এমবি ক্রয় করে ইন্টারনেট চালাতে হয়। তবুও নেটওয়ার্কের দুর্বলতার কারণে ইন্টারনেট চালানো পসিবল হয় না। তবুও আমরা প্রায় সময়ই ৫ দিন বা মাসের জন্য অধিক মূল্য দিয়ে একসাথে ৩-৪ জিবি ক্রয় করি।

আমাদের ভাগ্যটা এতই মন্দ যে, পুরো এক মাসেও ৩-৪ জিবি মোবাইল ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক দুর্বলতার জন্য শেষ করা যায় না। যাদের বাড়ির পাশে সিমের টাওয়ার আছে কেবল তারাই এমবি শেষ করতে সক্ষম। বাকি মানুষের এমবিগুলো মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে এভাবেই চলে যায়। বাংলাদেশের গ্রাম এলাকার প্রায় মানুষেরই এমবি কেনার টাকা যোগার করাও কষ্ট বটে। সবচেয়ে কষ্ট লাগে টাকা দিয়ে এমবি ক্রয় করে স্পীডের অভাবে যখন সেই এমবিগুলো ব্যবহার করা যায় না।

তাই আজকে আমরা আপনাদের সাথে স্লো ইন্টারনেট ফাস্ট করার চমৎকার একটি টিপস শেয়ার করবো, যার দ্বারা আপনারা অবশ্যই সামান্য হলেও উপকার পাবেন।

মোবাইল ইন্টারনেট কেন স্লো হয়?

() মোবাইলে ইন্টারনেট বিভিন্ন কারণে স্লো হয়ে থাকে। প্রধাণ কারণ হলো নেটওয়ার্ক। আপনার বাড়ি থেকে কাঙ্খিত সিমের টাওয়ারটি কত দূরত্বে রয়েছে, তার উপর ভিত্তি করে ইন্টারনেট স্লো বা ফাস্ট থাকতে পারে।

(২) আপনার এন্ড্রয়েড ফোনটি যদি অনেক পুরানো হয় তবে আপনার ইন্টারনেট স্লো থাকতে পারে।

(৩) মোবাইল ইন্টানেট প্যাকেজ গুলো কয়েকটি ভাগে বিভক্ত। যেমন, 2G, 3G , 4G বা 5G ইত্যাদি। আপনি অবশ্যই জানেন 3G ইন্টারনেট থেকে 4G ইন্টারনেট অনেক ফাস্ট। আবার 4G  ইন্টারনেট থেকে 5G ইন্টারনেট আরো ফাস্ট। তাই ইন্টারনেট প্যাকেজ কোনটি নিয়েছেন এটার উপর ভিত্তি করেও ইন্টারনেট স্লো বা ফাস্ট হয়।

(৪) আপনার মোবাইল প্রসেসর এবং নেটওয়ার্ক আইসির উপর ভিত্তি করেও ইন্টারনেট স্লো বা ফাস্ট হয়। (পুরানো মোবাইলের তুলনায় নতুন মডেলের মোবাইলগুলোর ইন্টারনেট স্পিড অনেক বেশী)।

(৫) অনেকেই মনে করেন, সিম অপারেটরের উপর ভিত্তি করে ইন্টারনেট গতি নির্ণয় হয়। এটা কিছুটা সত্য হলেও পুরোপুরি সত্য নয়। আপনি কোন অপারেটরের সিম ব্যবহার করেন এটা মূখ্য বিষয় না। আপনাকে সঠিক ভাবে তারা সার্ভিস দিতে পারছে কিনা এটাই মূখ্য বিষয়।

মোবাইল ইন্টারনেট ফাস্ট করার উপায়

আমি কোন সিম অপারেটর থেকে স্পন্সর নিয়ে কথা বলছি না। তবে আপনাদের বুঝানোর সুবিধার্থে একটি সিমের নাম উল্লেখ করছি। এক্সামপল: আমি Gramophone সিম দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছি। সব সিমের ব্যবহার একই।

মোবাইল ইন্টারনেট ফাস্ট করার টিপসটি প্রয়োগ করার জন্য আলাদা কোন অ্যাপসের প্রয়োজন নেই। আপনার মোবাইলের Settings অপশনে যান > তারপর More যান >তারপর Cellular Networks > তারপর Access Point Names > তারপর GP-INTERNET ক্লিক করুন।

এখানে অনেক গুলো অপশন দেখবেন, সবার নিচে যাবেন, তারপর APN protocol এ ক্লিক করে IPv6 সিলেক্ট করুন। তারপর APN roaming protocol এ ক্লিক করুন এবং আগের মতই IPv6 সিলেক্ট করুন। তারপর মোবাইলের ডানপাশে উপরে দেখুন (…) তিনটি ডট আছে, সেখানে গিয়ে Save করে নিন। ব্যাস, আপনার কাজ শেষ।

উল্লেখ্য, উপরোল্লিখিত স্টেপটি পুরোপুরি ভাবে আপনার মোবাইলের সাথে নাও মিলতে পারে। তবে একথা সত্য যে, এই অপশনগুলো অবশ্যই আপনার এন্ড্রয়েড ফোনটিতে আছে। অপশনগুলো এদিক-ওদিক হতে পারে। তবে পুরো প্রসেসটা একই।

গুরুত্বপূর্ণ আরো কিছু কথাঃ

এই টিপসটি ফলো করে আমি পার্সোনালি উপকার পেয়েছি। আমার মতো অনেক মোবাইল ইউজারেরাও এই স্টেপটি ফলো করে উপকার পেয়েছে। তাই মোবাইল ইন্টারনেট স্পিডআপ করার জন্য আপনিও এই টিপসটি ফলো করতে পারেন।

টিপসটি ফলো করার মাধ্যমে আশা করি আগের চেয়ে ভালো গতিতে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন ইনশাআল্লাহ। আর্টিকেলটি কল্যাণকর মনে হলে আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন। আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে জানিয়ে দিন। ধন্যবাদ

2 comments

Posts

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.