মোবাইল গরম হয় কেন - মোবাইল গরম হলে কি করনীয়

মোবাইল গরম হয় কেন? (করণীয় ও সমাধান)

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে স্মার্টফোন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একসময় এটিকে বিলাসিতার বস্তু মনে করলেও বর্তমান সময়ে স্মার্টফোন দৈনন্দিন জীবনের একটি অপরিহার্য সামগ্রী হিসেবে রূপ নিয়েছে। কিন্তু এই ডিজিটাল ডিভাইসটি ব্যবহার করতে গিয়ে প্রায় মানুষের অভিযোগ মোবাইল গরম হয় কেন এবং মোবাইল গরম হলে কি করনীয়? 

মোবাইল ফোন একটি ইনেক্ট্রনিক ডিভাইস। তাই এটি ব্যবহার করার সময় সামান্য গরম হবে এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। তবে অতিরিক্ত গরম (Mobile overheating problem) হওয়া অনেকটা অস্বাভাবিক।

বিভিন্ন কারণে মোবাইল গরম হয়ে যায়। প্রযুক্তিবিদদের মতে মোবাইল গরম হওয়ার কারন গুলোর মধ্যে রয়েছে ভারী apps, games, interner এবং functions রিলেটেড বিভিন্ন ইস্যু। 

প্রায়শই দেখা যায় স্মার্টফোন ইউজ করার সময় অস্বাভাবিক ভাবে অত্যাধিক মাত্রায় গরম হয়ে যায়। এটি মোবাইলকে দ্রুতই নষ্ট করে দিতে পারে এবং ব্যবহারে বিপদজনক প্রতিকূল অবস্থা সৃষ্টি করতে পারে। 

কি করলে ফোন গরম হবে না এই বিষয়েই আজকের আলোচনা। তবে এ নিয়ে অধিত চিন্তিত হবার প্রয়োজন নেই। কিছু নির্দেশনা মেনে চললেই এই সমস্যাটি এড়ানো সম্ভব। 

আরও পড়ুনঃ মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায়

আপনাদের সুবিধার্থে এই আর্টিকেলে আমি স্মার্টফোন গরম হওয়ার কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে বর্ণনা করেছি।

আপনার মোবাইল গরম হলে কি করা উচিত এবং কি কি প্রদক্ষেপ নেওয়ার মাধ্যমে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাবেন তা নিচে তুলে ধরা হলো। 

মোবাইল গরম হয় কেন?

মোবাইল গরম হওয়ার কারন নিয়ে প্রযুক্তিবিদগণ বিভিন্ন ধরণের মন্তব্য করে থাকেন। কেউ কেউ এটিকে মোবাইলের ফাংশনাল ক্রটি বলে অভিহিত করেছেন, আবার কেউ ব্যাটারি জনিত সমস্যা হিসেবেও চিহ্নিত করেন।

তবে এই দুটি সমস্যার কারণেই যে মোবাইল অতিরিক্ত গরম হয়, বিষয়টি শুধুমাত্র এখানেই সীমাবদ্ধ করা যাবে না। তবে এই দুটি কারণকেও এড়িয়ে চলা যাবে না।

এই দুটি কারণের পাশাপাশি ভারী apps, games, interner এবং functions রিলেটেড বিভিন্ন ইস্যুর কথাও উল্লেখ করা যেতে পারে। মোবাইল ফোন গরম হয় কেন চলুন ০টি কারণ জেনে নিই।

১, ভাইরাস / মালওয়্যার ইফেক্ট

ভাইরাস বা মালওয়্যার এই জিনিসটি যে কোনো ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

ভাইরাস মূলত মোবাইলের Memory, RAM এবং Processor এর কার্য সম্পাদনে বাধা দেয়।

মোবাইলটি তখন অনেকটা স্লো হয়ে যায় এবং অরিতিক্ত ব্যাটারি পাওয়ার খরচ করতে শুরু করে।

এ কারণে আপনার স্মার্টফোনের পার্স গুলো তখন অতিমাত্রায় হিট জেনারেট করে এবং অস্বাভাবিকভাবে পুরো মোবাইলটিই গরম হয়ে যায়। 

০২, একাধিক অ্যাপস একসাথে অন রাখা

মোবাইলে একসাথে অনেক গুলো অ্যাপস চালু করে কাজ করা মোটেও উচিত নয়। 

আপনি যখন একটি অ্যাপস ওপেন করে আরেকটি অ্যাপস ওপেন করেন, তখন মোবাইলের প্রসেসর, জিপিইউ ও Ram এর উপর অনেক বেশী প্রেসার ক্রিয়েট হয়।

যেটা মোবাইলের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতার তুলনায় অনেক বেশি। আর এমতাবস্থায় মোবাইলটি অতিরিক্ত গরম হয়ে যায়। 

০৩, এক্সটার্নাল মেমোরি প্রবলেম

ইন্টারনাল মেমোরি ও এক্সটার্নাল মেমোরির পার্থক্য সকলেই জানেন।

ইন্টারনাল মেমোরি হলো মোবাইলের স্থায়ী ফোন স্টো‌রেজ। আর এক্সটার্নাল মেমোরি অস্থায়ী ফোন স্টোরেজ।

আমরা সাধারণত মোবাইল ফোনে আলাদা ভাবে যেই মেমোরি গুলো ব্যবহার করি, ওগুলোই এক্সটার্নাল ফোন স্টো‌রেজ।

আরও পড়ুনঃ মোবাইলে বাংলা কিবোর্ড ডাউনলোড ও A-Z সেটিং প্রক্রিয়া

গবেষণায় দেখা যায়, এই ধরণের এক্সটার্নাল মেমোরি খুব ভালো কোয়ালিটি মেইন্টেন্ট করে তৈরি করা হয় না। ফলে এই মেমোরি গুলোর কার্যক্রম অনেক দুর্বল হয়। 

আমরা বর্তমানে যেই মোবাইল ফোনগুলো ব্যবহার করি, প্রযুক্তিগত ভাবে এগুলো অনেক আপডেট।

তাই এক্সটার্নাল মেমোরি ব্যবহার থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করবেন। কারণ, মেমোরির ত্রুটির জন্য অধিকাংশ সময় মোবাইল গরম হয়ে যায়।

এক্সটার্নাল মেমোরি যদি ব্যবহার করতেই হয়, তবে এক্ষেত্রে কমদামী মেমোরি ব্যবহার না করে ভালো ব্র্যান্ডের দামী মেমোরি ব্যবহার করতে পারেন। 

০৪, লো RAM ও Cache

পুরাতন মডেলের মোবাইল গুলোর Ram খুবই লো হয়ে থাকে। হয়তোবা জিবি Ram বিশিষ্ট মোবাইল গুলো অনেকেই চালাচ্ছেন।

তবে অকাট্য সত্য কথা হলো, বর্তমানে মোবাইলের অ্যাপস গুলো অনেক ফিচার সমৃদ্ধ ও শক্তিশালী।

পুরাতন মডেলের মোবাইল গুলোতে এই অ্যাপস গুলো রান হয় অনেকটা ডিফিক্যাল পদ্ধতিতে।

যে কারণে তখন মোবাইল ফোনটি অনেক স্লো কাজ করতে দেখবেন। আবার Ram এর ক্যাশ পরিস্কার না করলেও মোবাইল স্লো হয়ে যায়।

এই বিষয় গুলোও মোবাইল গরম হওয়ার জন্য দায়ী।

০৫, অতিরিক্ত Display Brightness

আমাদের অনেকেই মোবাইলের ডিসপ্লের আলো সবসময় বাড়িয়ে রাখি। এটা কখনই উচিত না। 

ডিসপ্লের আলোর লেভের ০০% রাখার কারণে যে শুধুমাত্র মোবাইল গরম হয়, বিষয়টি এমন নয়।

অতিরিক্ত আলোর কারণে আমাদের চোখে অনেক ক্ষতি হয়।

বিশেষ করে Blue Light এর ক্ষতিকর রশ্মি চোখ ও ব্রেনকে প্রভাবিত করে। 

০৬, মোবাইলে কভার ব্যবহার

মোবাইল ব্যবহারকারীদের প্রায় সবাই মোবাইলকে প্রোটেক্টর হিসেবে কভার বা ক্যাচিং ব্যবহার করি। 

তবে সত্যিকার অর্থে মোবাইলের ক্যাচিং গুলো আমাদের অজান্তেই মোবাইলকে অনেক বেশি ক্ষতি করছে। যা আমরা অনেকেই জানি না।

মোবাইল গরম হওয়ার কারণ গুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দায়ী হলো মোবাইলের ক্যাচিং। হ্যাঁ, অবিশ্বাস্য মনে হলেও এটাই বাস্তবতা। 

আরও পড়ুনঃ ৫ হাজার টাকার মধ্যে ভালো মোবাইল ২০২২

মোবাইল ব্যবহার করার সময় যতটুকু হিট জেনারেজ হয়, তা কভারের কারণে মোবাইলের ভেতরেই থেকে যায়। 

আর এটা মোবাইলকে সর্বদায় গরম রাখে। আবার কভারের জন্য মোবাইলের ভেতরে বাতাস প্রবেশ করতে পারে না। এ কারণে মোবাইলের পার্স গুলো আস্তে আস্তে দুর্বল হতে থাকে। 

০৭, দুর্বল নেটওয়ার্ক

দুর্বল নেটওয়ার্ক মোবাইলের অনেক বেশী শক্তি অপচয় করে।

আপনি যদি এমন কোনো স্থানে যান, যেখানে নেটওয়ার্ক খুবই দুর্বল। তবে সেই অবস্থায় আপনার ফোনটি বন্ধ রাখুন অথবা ফোনের Airplane mode চালু রাখুন। 

আবারও মোবাইলে ওয়াইফাই ইন্টারনেট অথবা সিম ইন্টারনেট ব্যবহারের সময়ও যদি ইন্টারনেট স্লো মনে হয়, তবে ইন্টারনেট কানেকশন বন্ধ রাখুন।

কারণ, দুর্বল নেটওয়ার্ক এবং দুর্বল ইন্টারনেট কানেকশন মোবাইলের ব্যাটারির চার্জ অতিমাত্রায় খরচ করে।

তখন অস্বাভাবিকভাবেই মোবাইলের তাপমাত্রা কয়েকগুণ বৃদ্ধি হয়। 

০৮, লো চার্জ এবং ত্রুটিপূর্ণ ব্যাটারি

দুর্বল নেটওয়ার্ক এবং মোবাইলের লো চার্জ এই দুই সময়েই মোবাইল ব্যবহার অনুচিত।

আপনার মোবাইলে যখন চার্জ অনেক কম থাকে, তখন অবশ্যই মোবাইল চার্জে দিন।

লো চার্জে মোবাইলের পার্স গুলোতে ব্যাটারি সঠিক ভোল্টেজ প্রদান করতে পারে না। তখন মোবাইল অতিরিক্ত গরম হয়ে যায়।

আরও পড়ুনঃ মোবাইল স্লো হলে করণীয়

আবার ব্যাটারির ত্রুটির কারণেই মোবাইল গরম হয়। ব্যাটারি যদি ফুলে যায় এবং ব্যাটারিতে যদি চার্জ ব্যাকআপ কম থাকে, তবে দ্রুতই ব্যাটারি পরিবর্তন করুন।

ত্রুটিপূর্ণ ব্যাটারি শুধু মোবাইলেই গরম করেনা, মোবাইলের গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রাংশকেও ডেমেজ করে দেয়। 

০৯, দীর্ঘক্ষণ চার্জ দেওয়া

গবেষকদের মতে মোবাইলের আদর্শ চার্জ লেভেল হলো ৪০% থেকে ৮০% পর্যন্ত।

তবে আমরা সাধারণত মোবাইলকে 100% চার্জ দেওয়ার পরও চার্জে লাগিয়ে রাখি। এটা নিত্যান্তই ভুল কাজ।

অনেকেই ডিজ্ঞাসা করেন, মোবাইল চার্জ দিলে গরম হয় কেন? এর বেশকিছু কারণ রয়েছে।

মনে রাখতে হবে, দীর্ঘক্ষণ মোবাইলকে চার্জে লাগিয়ে রাখাও মোবাইল গরম হওয়ার কারণ। 

০, ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস

মোবাইলের ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস গুলো প্রতিনিয়তই আপনার অজান্তেই ব্যাটারির চার্জ সহ মোবাইলের শক্তি খরচ করছে।

মোবাইল ফোনটি যতক্ষণ চালু থাকে, ঠিক ততক্ষণই ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস গুলো চলতে থাকে। এগুলো সর্বদাই মোবাইলকে গরম করতে থাকে। 

আরও পড়ুনঃ ঘরে বসে মোবাইলে আয় করার সেরা উপায়। 

এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণের জন্য আপনাকে Mobile Setting -এ যেতে হবে। তারপর Apps বা Application এ যেতে হবে।

ওখানে যাওয়ার পর আপনার মোবাইলে ব্যবহৃত সকল অ্যাপসের তালিকা দেখতে পারেন। সেখান থেকে অপ্র‌য়োজনীয় সকল অ্যাপসকে আন-ইনিস্টল করুন অথবা ডিজেবল করে দিন। 

মোবাইল গরম হলে কি করনীয়

এমন কিছু বিষয় আছে, যেগুলো ফলো করলে মোবাইলের অতিরিক্ত গরম বৃদ্ধি থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে। 

চলুন জেনে নিই মোবাইল গরম হওয়া থেকে বাঁচার উপায় গুলো কি কি –

০১, চার্জিং পুর্ট বা ক্যাবল পরিস্কার রাখুন

যারা মনে করেন যে আপনার মোবাইল ফোনটি অটোমেটিক ভাবে গরম হয় অথবা মোবাইল চার্জ দেওয়ার সময় অতিরিক্ত গরম হয়, তারা অবশ্যই চার্জিং পুর্ট বা ক্যাবলটি পরিস্কার করুন। 

স্মার্টফোন গরম হওয়ার কারণ গুলোর মধ্যে ত্রুটিযুক্ত চার্জিং ক্যাবলও অনেক ক্ষেত্রে দায়ী। 

আপনার মোবাইলের চার্জিং ক্যাবলে যদি সমস্যা থাকে, তবে মোবাইল চার্জ করার সময়ও গরম হবে, আবার মোবাইল ব্যবহার করার সময়ও গরম হবে। 

সবসময় মোবাইলের চার্জিং ক্যাবলটি ধুলাবালি থেকে পরিস্কার রাখুন। ক্যাবলে যদি মরিচিকা পড়ে অথবা ক্যাবলে যদি কোনো ত্রুটি থাকে তবে যথাসম্ভব দ্রুতই পরিবর্তন করুন। 

০২, অপ্রয়োজনীয় apps delete করুন

মোবাইলে কখনই অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস ইনিস্টল দিয়ে রাখবেন না। আপনার যেই অ্যাপস গুলো দৈনন্দিন প্রয়োজন হয়, কেবল ঐ অ্যাপস গুলোই ইনিস্টল দিন।

অনেকের মোবাইলে শত শত অ্যাপস ইনিস্টল দেওয়া থাকে। বিশেষ করে যারা মোবাইলে গেম খেলে তাদের মোবাইলে শুধু গেমের অ্যাপসই ২০ -৩০ টা ইনিস্টল থাকে।

আরও পড়ুনঃ নাথিং ফোন কি iPhone থেকেও ভালো?

এই কাজ গুলো করা কখনই উচিত না। স্মার্টফোনকে একটি নির্দিষ্ট ধারণক্ষমতা দিয়ে তৈরি করা হয়। আপনি যখন এরচেয়ে বেশি ধারণ করতে চান, তখন এটা আর স্বাভাবিক থাকবে না। তখন অতিরিক্ত হিট জেনারেট করবে। 

তাই অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস তো ডিলেট করবেনই, পাশাপাশি অতিরিক্ত অ্যাপস ইনিস্টল করা থেকেও বিরক থাকবেন। তাহলে মোবাইলের তাপমাত্রা অনেকটা নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। 

০৩, অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করুন

ভাইরাস বা মালওয়্যারের কারণে মোবাইল ফোন গরম হয়, স্লো হয়, নষ্ট হয় এই বিষয়গুলো সকলেই জানি। 

ভাইরাসের সমস্যাটি খুবই জটিল একটি সমস্যা। তবে এই সমস্যা থেকে বাঁচার উপায় হলো অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করা। 

মোবাইলে অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করলে ভাইরাস জনিত প্রায় সকল প্রবলেম থেকে নিরাপদ থাকা যায়। আবার প্রাইভেসি সুরক্ষাতেও  অ্যান্টিভাইরাসের ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

আরও পড়ুনঃ সেরা ০টি মোবাইল এন্টিভাইরাস অ্যাপস

০৪, মোবাইল ক্যাচিং খুলে ফেলুন

ইতিমেধ্যেই বলেছি মোবাইলের ক্যাচিং গুলোকে আমরা প্রোটেক্টর হিসেবে ব্যবহার করলেও এটি মোবাইলের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

মোবাইল একটি ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র। তাই এটি সাধারণভাবে একটু গরম হবে এটা স্বাভাবিক।

কিন্তু মোবাইলে কভার বা ক্যাচিং ব্যবহার করার ফলে মোবাইলের স্বাভাবিক গরমটাকে অস্বাভাবিক করে তোলে। 

এমতাস্থায় অনেকেই মনে করেন যে, আপনার মোবাইল ফোনে হয়ত কোনো সমস্যা হয়েছে। কিন্তু এই অতিরিক্ত গরম হওয়ার পেছনে আপনার মোবাইলের কভারই একমাত্র দায়ী। 

তাই মোবাইলের কভার ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। 

০৫, মোবাইল স্টোরিজে জায়গা খালি রাখুন

মোবাইলের স্টোরেজ পূর্ণ করে রাখা আমাদের অনেকেরই জাতীয় অভ্যাস। এই চরম ভুলটা অনেকেই করে থাকেন। 

এমনটা যারা করেন, তাদের মোবাইল গরম হওয়াটা স্বাভাবিক। 

আমরা যখন মোবাইলে কোনো প্রোগ্রাম বা অ্যাপস চালু করি তখন যেটা মূলত Ram এর মাধ্যমে রান হয়, তবে কাঙ্খিত সেই প্রোগ্রাম বা অ্যাপসটি চালু হওয়ার জন্য যেই জায়গার প্রয়োজন হয় তা আপনার ফোন স্টোরেজ থেকেই নেওয়া হয়। 

আরও পড়ুনঃ মোবাইলে ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড চেঞ্জ করার নিয়ম

আপনার মোবাইলের স্টোরেজ যদি পূর্ণ করে রাখেন, তবে মোবাইলের অ্যাপসগুলো রান করার মতো পর্যাপ্ত জায়গা অবশিষ্ট থাকে না। 

তখন মূলত মোবাইলটি অতিরিক্ত হিট জেনারেট করে এবং মোবাইল স্লো হয়ে যায়। তাই সবসময় মোবাইলের স্টোরেজে পর্যাপ্ত জায়গা খালি রাখুন।

গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথাঃ

প্রিয় পাঠক, ’মোবাইল গরম হয় কেন এবং মোবাইল গরম হলে কি করনীয়’ এই বিষয়ে বিশ্বের বিভিন্ন প্রযুক্তিবিদদের মত অনুসরণ করে আপনাদের গাইড দেওয়ার চেষ্টা করেছি। 

সেইসাথে আপনাদেরকে মোবাইল গরম হওয়া থেকে বাঁচার উপায় সম্পর্কেও বলেছি। উল্লিখিত বিষয়গুলো ফলো করার মাধ্যমে আপনি ফোন গরম হওয়া থেকে পরিত্রাণ পেতে পারেন। 

আশাকরি, আর্টিকেলটি আপনাদের বিশেষভাবে উপকারে আসবে। এই বিষয়ে যদি আপনার কোনো প্রশ্ন থাকে তবে অবশ্যই কমেন্টে আমাদের জানিয়ে দিন। আমরা যথাসাধ্য আপনার প্রশ্নের উত্তর দেবো ইনশাআল্লাহ। 

Add comment

Posts

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.