বেতন মওকুফের জন্য আবেদন পত্র

বেতন মওকুফের জন্য আবেদন পত্র (নমুনা কপি)

প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে পড়াশোনার ক্ষেত্রে প্রায় সকল স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি ও মাদ্রাসাতে একটি নির্দিষ্ট বেতন নির্ধারিত থাকে। কিন্তু প্রায় শিক্ষার্থীর পরিবার আর্থিক অসচ্চলতার কারণে প্রতি মাসে বেতন পরিশোধ করতে পারে না।

এমতস্থায় প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ বা প্রধান শিক্ষক বরাবর বেতন মওকুফের জন্য আবেদন পত্র লিখলে তার একটি সমাধান পাওয়া যায়।

করোনাকালীন সময়ে প্রায় শিক্ষার্থীর পরিবারেরই অর্থনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। অনেকের ব্যবসা -বাণিজ্য ভালো না হওয়ায় পরিবারের উপর অর্থনৈতিক চাপ সৃষ্টি হয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে যেই শিক্ষার্থীরা স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি ও মাদ্রাসার মাসিক বেতন যথাযথভাবে পরিশোধ করতে পারছেন না, তারা পুরো বেতন বা অর্ধ বেতন মওকুফ করাতে অবশ্যই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ বা প্রধান শিক্ষক বরাবর আবেদন পত্র লিখুন।

অনেকেই জানেননা কিভাবে বেতন মওকুফের জন্য দরখাস্ত বা আবেদনপত্র লিখতে হয়। আজ আমি আপনাদেরকে বেতন মওকুফের আবেদন পত্র লেখার নিয়ম বলে দেবো।

আপনাদের সুবিধার্থে প্রায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেমন- স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি, মাদ্রাসা ইত্যাদি সহ সকল শিক্ষাঙ্গনের বেতন মওকুফের দরখাস্ত আলাদা আলাদা নিচে উপস্থাপন করেছি।

স্কুলের বেতন মওকুফের জন্য আবেদন পত্র

তারিখঃ ০৩/০২/২০২৩ ইং
বরারর,
প্রধান শিক্ষক
সৈয়দ আনিসুল হক উচ্চ বিদ্যালয়, রসূলপুর, বি-বাড়িয়া ।

বিষয়ঃ বেতন মওকুফ এর জন্য আবেদন।

মহোদয়,
সবিনয় বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার স্কুলের দশম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের একজন নিয়মিত ছাত্র। গত JSC পরীক্ষায় আমি গোল্ডেন A+ পেয়ে আপনার স্কুলের সুনাম বৃদ্ধি করেছি। আশাকরি, আগামী SSC পরীক্ষায় সম্মিলিত মেধা তালিকায় স্থান অধিকার করে স্কুলের সুনাম আরও বৃদ্ধি করতে সক্ষম হবো ইনশাআল্লাহ। আমার পিতা একজন দারিদ্র কৃষক। যে কারণে তার রোজগার দিয়ে পরিবারের ভরণ-পোষণ করে আমার স্কুলের বেতন পরিশোধ করতে তিনি একেবারেই অক্ষম।

আরও পড়ুনঃ অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন পত্র (বাংলা -ইংরেজি)

অতএব, আপনার সমীপে আমার বিনীত প্রার্থনা এই যে, আমার দারিদ্রতার কথা বিবেচনা করে বেতন মওকুফের মাধ্যমে আমাকে উচ্চশিক্ষার সুযোগদানে আপনার নিকট আমি চির কৃতজ্ঞ থাকব।

নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্র
সাব্বির আহমাদ শাকিল
শ্রেণিঃ দশম, বিভাগঃ বিজ্ঞান
রোলঃ ২৯

মাদ্রাসার বেতন মওকুফের জন্য আবেদন পত্র

তারিখঃ ০২/০৩/২০২৩ ইং
বরারর,
প্রিন্সিপাল
আল-জামিয়াতুল ইমদাদিয়া, কিশোরগঞ্জ।

বিষয়ঃ বেতন মওকুফ এর জন্য আবেদন।

মহোদয়,
যথাবিহিত সম্মান প্রদর্শনপূর্বক নিবেদন এই যে, আমি আপনার মাদ্রাসার শরহে বেকায়া জামাতের একজন নিয়মিত ছাত্র। আমার বাবা একজন দারিদ্র ব্যবসায়ী। করোনাকালীন সময়ে তার ব্যবসায় অবনতি হয়েছে। যে কারণে পরিবারের ভরণ-পোষণেই তিনি হিমশিম খাচ্ছেন। এমস্থতায় আমার পড়াশোনার খরচ চালিয়ে নেওয়া তাঁর জন্য অনেক কষ্টকর।

আরও পড়ুনঃ জরিমানা মওকুফের জন্য আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

অতএব, মহোদয়ের সমীপে একান্ত নিবেদন এই যে, আমার দারিদ্রতার কথা বিবেচনা করে মাদ্রাসার বেতন মওকুফের মাধ্যমে দ্বীনিশিক্ষা অর্জনের সুযোগদানে বাধিত করবেন।

নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্র
সালমান বিন আতহার
জামাতঃ শরহে বেকায়া
দাখেলাঃ ৩২৯

কলেজের বেতন মওকুফের জন্য আবেদন দরখাস্ত নমুনা

তারিখঃ ০২/০৩/২০২৩ ইং
বরারর,
অধ্যক্ষ
গুরুদয়াল সরকারি কলেজ, কিশোরগঞ্জ।

বিষয়ঃ বেতন মওকুফ এর জন্য আবেদন।

জনাব,
যথাবিহিত সম্মানের সাথে নিবেদন এই যে, আমি আপনার কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্র। আমার বাবা হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এখন পরিবারের জীবিকা অর্জনের মতো কেউ নেই। মা ছোট্ট পরিসরে কাজ করে কোনোমতে পরিবারের খাওয়া-দাওয়ার খরচ চালিয়ে নেন। এজন্য আমি গত ৪ মাস ধরে কলেজের বেতন দিতে পারছি না। বাবা সুস্থ হওয়ার আগ পর্যন্ত বেতন পরিশোধ করতে আমি অক্ষম।

আরও পড়ুনঃ সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে করণীয়

অতএব, মহোদয় আপনার সমীপে আমার একান্ত আরজ এই যে, আমার দারিদ্রতার কথা বিবেচনা করে গত ৪ মাস সহ আগামী ৫ মাসের বেতন মওকুফের মাধ্যমে শিক্ষা অর্জনের সুযোগদানে বাধিত করবেন।

নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্র
শাহরিয়ার কবির
শ্রেণিঃ দ্বাদশ
রোলঃ ৩২৩৯

বিশ্ববিদ্যালয়ের বেতন মওকুফের জন্য আবেদন

তারিখঃ ০২/০৩/২০২৩ ইং
বরারর,
ভাইস-চ্যান্সেলর
বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ।

বিষয়ঃ বেতন মওকুফ এর জন্য আবেদন।

জনাব,
যথাবিহিত সম্মান প্রদর্শনপূর্বক নিবেদন এই যে, আমি আপনার ইউনিভার্সিটির অনার্স প্রথম বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের একজন নিয়মিত ছাত্র। আমার বাবা একজন অত্যন্ত দরিদ্র কৃষক এবং তিনি আমাদের পরিবারের একমাত্র আয়ের উৎস। তার সীমিত আয়েই আমাদের পরিবার চলে। দ্রব্যমূর্ল্যের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে বর্তমানে পরিবারের ভরণ-পোষণই তার জন্য চ্যালেঞ্জিং হয়ে পড়েছে। এরইমধ্যে আমার পড়াশোনার খরচ চালিয়ে যাওয়া তারজন্য প্রায় অসম্ভব।

আরও পড়ুনঃ চাকরির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

অতএব, মহোদয়ের সমীপে আমার একান্ত আরজ এই যে, আমার পরিবারের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে আপনার ভার্সিটির বেতন মওকুফের মাধ্যমে আমাকে ‍উচ্চশিক্ষা অর্জনের সুযোগ করে দেবেন।

নিবেদক,
মো. আল-আমিন বিন সাঈফ
শ্রেণিঃ অনার্স, ম. বর্ষ, সেমিস্টার ২য়.

করোনায় বেতন মওকুফের জন্য আবেদন দরখাস্ত

তারিখঃ ০২/০৩/২০২৩ ইং
বরারর,
প্রধান শিক্ষক
আজিম উদ্দিন বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, বান্দরবান।

বিষয়ঃ বেতন মওকুফ এর জন্য আবেদন।

জনাব,
আপনার নিকট আমার আকুল নিবেদন এই যে, আমি আপনার স্কুলের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্র। আমার বাবা নেই। পরিবারের ভরণ-পোষণের দায়িত্ব মায়ের উপর ন্যাস্ত। আমার পড়াশোনার খরচ তিনিই যোগার করেন। করোনাকালীন সময়ে আমাদের পরিবারের আর্থিক অবস্থার অনেকটা অবনতি হয়েছে। এখন সাংসারিক কর্মকান্ড পরিচালনা করতেই মায়ের অনেক কষ্ট হচ্ছে। স্কুলের বেতন গত ৫ মাস ধরে পরিশোধ করতে পারিনি। করোনায় আমাদের বর্তমান অবস্থার আরও অবনতি হওয়ায় স্কুলের বেতন দিতে আমি পুরোপুরি ভাবে অক্ষম।

অতএব, আপনার নিকট আমার আকুল আবেদন এই যে, আমার দারিদ্রতার কথা বিবেচনা করে সম্পূর্ণ বিনা-বেতনে পড়াশোনার সুযোগদানে আমাকে বাধিত করবেন।

নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্র
জামাল উদ্দিন
শ্রেণিঃ অষ্টম
রোলঃ ০

প্রিয় পাঠক, যে কোনো ধরণের বেতন মওকুফের জন্য আবেদন পত্র একই নিয়মে লিখতে হয়। শুধুমাত্র নিজের অপারগতা শিকার করে মনের ভাষাগুলো উপস্থাপন করার মাধ্যমে বেতন মওকুফের বিষয়টা উল্লেখ করতে হয়।

এটাই মূলত বেতন মওকুফের দরখাস্ত বা আবেদনপত্র। আশাকরি আপনারা সকলেই বেতন মওকুফের আবেদন পত্র লেখার একটি সুস্পষ্ট ধারণা পেয়েছেন। এই বিষয়ে যদি আপনার আরও কোনো প্রশ্ন থাকে, তবে অবশ্যই আপনার মতামত কমেন্টে জানান।

Add comment

Posts

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.